Logo
শিরোনাম
নাটোরের স্বাধীনতার আশঙ্কা, দুর্ঘটনার ঘটনা, ২ তালেবাণ দখল করতে হবে তালেবানের ডাকল এলাকা বন্যায় ১৫০ জনের মধ্যে সুন্দর সফল জাদুকরী পদ্ধতি সুন্দর সফল জাদুকরী পদ্ধতি ভাসানচর থেকে পালিয়ে যাওয়া ১০ রোহিঙ্গা বাড়ি ড্যাচ বাংলা ব্যাঙ্ক কর্মী পিকেএসএফ এর নতুন ব্যবস্থাপনা নমিতা হালদার পেস না স্পিন, অস্ট্রেলিয়ার বৈদেশিক বিস্ফোরণ কি বাংলাদেশ? লিবিয়া নৌকা ডুবে ৫৭ জনগণের প্রত্যাশীর মৃত্যু আড়তীদের শতাংশ৯ শতাংশে-মধ্যভুশি, কারণ … কুমিল্লায় পরিবেশে মারধর, স্বর্ণকেন্দ্র ৩ স্বজন কারাগড়া করোনার টিকা চলুন না ফেরার দেশে চলে গেলেন ফকির আলমগীর। জাহাজেরনগর সত্য এক আনন্দ নগর আমি শোকে দেখিঃ কনকচাঁপা সে হোসেনের ঈদ ক্যাটলো যেমন পাটুরিয়ায় ৫ মিনিটের রজনী, তারপরে ফ্রেটি ছুটী দৌলতদিয়া মাননীয় মেয়র জাহাঙ্গীর আলম কে পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা যানিয়েছেন মাতৃবাংলা ২৪ টিভি পরিবার। করোনায় সচেতনতার সাথে কুরবানী করুন।

শীতে কাঁপছে দেশ

রাজধানীসহ সারাদেশে জেঁকে বসেছে শীত। কনকনে হিম বয়ে আনা বাতাসে উঠছে হাড় কাঁপুনি। ঢাকায় রাতের তাপমাত্রা নেমে এসেছে ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। হঠাৎ চলে আসা এই ঠাণ্ডা ‍অনুভূতিতে মানিয়ে নিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে নগরবাসীকে।

খবর আসছে, হঠাৎ করে ঠাণ্ডার এ আক্রমণে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন অনেকে। বিশেষ করে শিশু ও বৃদ্ধরা আক্রান্ত হচ্ছেন নানা রোগে।

আবহাওয়াবিদরা বলছেন, রাত ও দিনের তাপমাত্রার পার্থক্য কমে যাওয়ার কারণে ঠাণ্ডার অনুভূতি বাড়ে। বর্তমানে রাজধানীতে রাত ও দিনের তাপমাত্রার পার্থক্য প্রায় অর্ধেক কমে এসেছে। তারপরও রয়েছে ‘উত্তরা বাতাস’। ফলে মড়ার ওপর খাড়ার ঘা’র অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ আরিফ হোসেন বলেন, আগামী ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত রাজধানীর তাপমাত্রা কমবে। ১৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে আসবে ব্যারোমিটারের পারদ। দিনের তাপমাত্রা এখন ২০ ডিগ্রি সেলিসিয়াসে আছে। এটা আরো নিচে নেমে এলে রাত ও দিনের তাপমাত্রার পার্থক্য আরও কমে যাবে। ফলে ঠাণ্ডার অনুভূতি আরও বাড়বে।

তিনি বলেন, উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে আসছে বাতাস, যেটাকে আমরা ‘উত্তরা বাতাস’ বলে থাকি। ঢাকায় বর্তমানে বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ৮ থেকে ১২ কিলোমিটার। এই বাতাস কনকনে হিম বয়ে এনে হাড় কাঁপুনির সৃষ্টি করেছে। এই বাতাস না থাকলে দিনের তাপমাত্রা এতো কমতো না। আর এতো ঠাণ্ডাও অনুভূত হতো না। ৯-১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে এতো ঠাণ্ডা অনুভূত হয়না, যদি রাত ও দিনের তাপমাত্রার পার্থক্য বেশি থাকে।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, রাজধানীতে সূর্যের দেখা মিলছে না বললেই চলে। এমন অবস্থা দু’দিন থাকার পর সূর্যকিরণ আবার আগের মতো পাওয়া যাবে। স্থান ভেদে ২১ ও ২২ ডিসেম্বরের দিকে ঠাণ্ডা অনুভূতি কমে আসবে। এরপর আসতে পারে নিম্নচাপ। এক্ষেত্রে ডিসেম্বরের শেষ নাগাদ মাঝারী (৬ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা) ধরণের শৈত্যপ্রবাহের মধ্য দিয়ে যেতে হতে পারে দেশবাসীকে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Design & Maintenance By Abu Bokkor Siddik
error: এই সাইটের নিউজ কপি করা বেআইনী !!