Logo
শিরোনাম
ভোট গণনা নিয়ে সংঘর্ষ পটুয়াখালী। গাজীপুরে মোঃ আশিক মিয়ার স্ত্রীকে অপহরণ করে নিয়ে যায় মোঃমোকলেস। তিন বিষয়ে পরীক্ষা নেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন। বক্স আনার কথা বলে ১৪ বছরের মেয়েকে ধর্ষণ। তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা: মুরাদ হাসান কে পদত্যাগের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর। আজও শিক্ষার্থীদের রামপুরায় অবরোধ। মহা পবিত্র ওরস শরীফ। গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগে জাহাঙ্গীরের জায়গায় মোঃ আতাউল্লাহ মন্ডল। গাজীপুর শিশুসহ নারীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার। বিশ্বশান্তি রোল মডেল বাংলাদেশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। কবি মাসুম বিল্লাহ`র ৫০ তম জন্ম বার্ষিকীতে গুণীজনদের মিলন মেলা। বকেয়া বেতনের দাবিতে গাজীপুর মহাসড়কের অবরোধ। আমি ভুল করিনি তবু ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সিদ্ধান্ত মাতা পেতে নিব। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে আওয়ামী লীগ থেকে আজীবন বহিষ্কার করলেন। গাজীপুর মহানগর ৩২নংওয়ার্ড সভাপতি পদপ্রার্থী মোঃ মাসুদ রানা। এসআই উৎপল এএসআই মোঃ জসিম উদ্দিন কং ২৭২বদরুজ্জামান। গাজীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় দুজন নিহত। গাজীপুর মহানগর যুবলীগ ৩৪ নংওয়ার্ড সভাপতি পদপ্রাথী মোঃ আব্দুস সামাদ আজাদ। সন্তান প্রসবের ১৮ ঘন্টা পর এসএসসি পরীক্ষা দিল কিশোরী।

দেশের মানুষ পরিবহন সেক্টরের কাছে জিম্মি: হাইকোর্ট

দেশের মানুষ তো পরিবহন সেক্টরের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছে। কিছু হলে শ্রমিকদের রাস্তায় নামিয়ে দেয়া হয় বলে মন্তব্য করেছেন আদালত।

বুধবার গ্রিন লাইন বাসের চাপায় পা হারানো রাসেলের ক্ষতিপূরণের রুলের শুনানিতে বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

আদালত বলেন, একজন মানুষ (ইলিয়াস কাঞ্চন) নিরাপদ সড়কের দাবিতে সারা জীবন আন্দোলন করছেন, অথচ তাকে হেয় করল শ্রমিকরা। কিন্তু উনি তো নিজের জন্য আন্দোলন করছেন না।

আদালত আরো বলেন, ড্রাইভিং লাইসেন্স দেয়ার ক্ষেত্রে বলা হয়েছিলো মানুষ, গরু-ছাগল চিনলেই হয়। দায়িত্বশীল পদে থেকেও তো এরকম কথা বলা হয়েছে। দুর্ঘটনায় কি শুধু সাধারণ মানুষ মারা যায় চালকও তো মারা যায়। সেটাও তো পরিবহন মালিকদের লক্ষ্য রাখা উচিত। একজন চালক মারা গেলে তার পরিবারকে কি ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়?

রাসেলের ক্ষতিপূরণ বিষয়ে আইনজীবীর উদ্দেশ্যে হাইকোর্ট বলেন, ও তো গরীব ছেলে। মানবিক দিক বিবেচনায় নিয়ে তো ওকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া উচিত। আপনাদের পরিবহন মালিকদের কোটি কোটি টাকা। ইচ্ছে করলে এ ধরনের ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তির জন্য তো অনেক কিছুই করার সুযোগ রয়েছে।

আদালত বলেন আপনাদের (গ্রিন লাইন) আবেদনের প্রেক্ষিতে আমরা কিস্তি করে টাকা দেওয়ার সুযোগ করে দিয়েছিলাম। এখন সেই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে গেছেন। রাসেল তো এখন টাকা পাচ্ছে না। ফলে চিকিৎসা না হওয়ায় তার শারীরিক অবস্থা অবনতির দিকে।

এ সময় গ্রিন লাইন পরিবহনের আইনজীবী অ্যাডভোকেট শাহ মঞ্জুরুল হক বলেন, আমি আমার ক্লাইয়েন্টের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলব। আমার ক্লাইয়েন্টের আপত্তি ছিল এভাবে ক্ষতিপূরণ দেয়ার আদেশ হলে সবাই আদালতে চলে আসবে। আদালত বলেন, মালিকরা দক্ষ চালক নিয়োগ দিচ্ছে না বলেই তো সড়ক দুর্ঘটনা ঘটছে। এ কারণেই তো ক্ষতিগ্রস্তরা আদালতে আসছে। যদি চালক নিয়োগে পরিবহন মালিকরা সতর্ক হত তাহলে দুর্ঘটনা কমে যেত বলেও মন্তব্য করেন আদালত।

পরে গ্রিন লাইন পরিবহনের আইনজীবীর আবেদনের প্রেক্ষিতে অবকাশের পর এই মামলার রুল শুনানির জন্য দিন ধার্য করেন আদালত।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By Raytahost
error: এই সাইটের নিউজ কপি করা বেআইনী !!