Logo
শিরোনাম:
জয়দেবপুর রেলওয়ে স্টেশনে বিভিন্ন দাবিতে কর্মসূচি। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ গাজীপুর সদর মেট্রো থানা শাখা এর ত্রি বার্ষিক সম্মেলন ২০২২। বিক্রয় অযোগ্য সরকারি ৫০ বস্তা চাউল উদ্ধার। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কন্যা বেঁচে আাছেন যতদিন মাননীয় প্রধান মন্ত্রী হিসাবে চাই ততদিন। গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ খান ও সাদারণ সম্পাদক আতাউল্লা মন্ডল। গাজীপুর মহানগর যুবলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী মোঃহিরা সরকার। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ গাজীপুর মহানগর। বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৫০ তম। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন ৩২ নং ওয়ার্ডে ন্যায্য মুল্যে চাউল আটা দেওয়া হচ্ছে। ময়মনসিংহে সড়কে প্রাণ গেল নারী-শিশুর

খালেদাকে মানবিক কারণে জামিন দিন, আদালতে জয়নুল

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানিতে তাঁর আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেছেন, তাঁরা মানবিক কারণে খালেদা জিয়ার জামিন চাইছেন। তাঁর অবস্থা দিন দিন খারাপ হচ্ছে। তিনি পঙ্গু অবস্থায় চলে গেছেন। হয়তো ছয় মাস পর তাঁর অবস্থা আরও খারাপ হবে।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন ছয় সদস্যের আপিল বিভাগে আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা ১০ মিনিটের দিকে খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি শুরু হয়।

শুরুতে আদালতের কাছে খালেদা জিয়ার সবশেষ স্বাস্থ্যগত অবস্থা সম্পর্কিত মেডিকেল বোর্ডের প্রতিবেদন জমা দেন সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল আলী আকবর।

এরপর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নুল আবেদীনকে বিএসএমএমইউর দেওয়া স্বাস্থ্যগত প্রতিবেদন পড়তে দেওয়া হয়।

প্রথমে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম মেডিকেল বোর্ডের প্রতিবেদন নিয়ে কথা বলেন। পরে খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বক্তব্য দেন।

জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘এই আদালত দেশের সর্বোচ্চ আদালত। এই আদালতের প্রতি আমাদের পূর্ণ আস্থা আছে। আমরা মানবিক কারণে খালেদা জিয়ার জামিন চাইছি। খালেদা জিয়া আদালতে গেলেন হাঁটতে-হাঁটতে। একজন সুস্থ মানুষ ছিলেন। কিন্তু আমরা দেখলাম, তাঁর অবস্থা দিন দিন খারাপ হচ্ছে।’

আদালত তখন জয়নুল আবেদীনকে মেডিকেল প্রতিবেদন পড়ে শোনাতে বলেন। জয়নুল আবেদীন আদালতকে বলেন, ‘আমি ডাক্তার না। তবু যেটুকু বুঝি, এই মেডিকেল প্রতিবেদন বলছে, খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসা দরকার। মানবিক কারণে আমরা খালেদা জিয়ার জামিন চাচ্ছি। তাঁর অবস্থা এমন যে তিনি পঙ্গু অবস্থায় চলে গেছেন। হয়তো ছয় মাস পর তাঁর অবস্থা আরও খারাপ হবে। আর কোথাও গিয়ে লাভ নেই। এ জন্য আমরা বারবারই আদালতের কাছে আসছি, বলছি, মানবিক কারণে খালেদা জিয়াকে জামিন দেওয়া হোক।’

বেলা ১১টার পর আদালত বিরতিতে যান। বিরতির পর আবার শুনানি গ্রহণ করবেন আদালত।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By Raytahost
error: এই সাইটের নিউজ কপি করা বেআইনী !!