Logo
শিরোনাম:
জয়দেবপুর রেলওয়ে স্টেশনে বিভিন্ন দাবিতে কর্মসূচি। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ গাজীপুর সদর মেট্রো থানা শাখা এর ত্রি বার্ষিক সম্মেলন ২০২২। বিক্রয় অযোগ্য সরকারি ৫০ বস্তা চাউল উদ্ধার। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কন্যা বেঁচে আাছেন যতদিন মাননীয় প্রধান মন্ত্রী হিসাবে চাই ততদিন। গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ খান ও সাদারণ সম্পাদক আতাউল্লা মন্ডল। গাজীপুর মহানগর যুবলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী মোঃহিরা সরকার। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ গাজীপুর মহানগর। বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৫০ তম। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন ৩২ নং ওয়ার্ডে ন্যায্য মুল্যে চাউল আটা দেওয়া হচ্ছে। ময়মনসিংহে সড়কে প্রাণ গেল নারী-শিশুর

দীঘির সিনেমায় দর্শক নেই, বিদ্যুৎ বিলের টাকাই উঠছে না!

রাজধানীর ৬টি সহ দেশের মোট ২৫ সিনেমা হলে আজ মুক্তি পেয়েছে দেলোয়ার জাহান ঝন্টু পরিচালিত সিনেমা ‘তুমি আছো তুমি নেই’। এ সিনেমার মধ্য দিয়ে নায়িকা হিসেবে অভিষেক ঘটেছে শিশুশিল্পী হিসেবে তুমুল জনপ্রিয়তা

পাওয়া দীঘির। ছবির ট্রেলার হতাশ করে দর্শকদের। ট্রেলারে সমালোচনায় দীঘির এক মন্তব্যকে ঘিরে বেশ সমালোচনা তৈরি হয়। যার কারণে ছবিটি মুক্তি পেলেও আশানুরূপ দর্শক নেই রাজধানীর শ্যামলী সিনেমা হলে। সেখানে চলছে ‘তুমি আছো তুমি নেই’ সিনেমাটি। এরইমধ্যে একটি শো শেষ হয়ে আরও একটি শুরু হলেও তেমন দর্শকের দেখা মেলেনি হলে। শুক্রবার (১২ মার্চ) দুপুরে শ্যামলী সিনেমা হলে এমনটাই দেখা গেছে।

শ্যামলী সিনেমা হলের দায়িত্বপ্রাপ্ত ম্যানেজার মোহাম্মদ হাসান বলেন, নতুন সিনেমার প্রতি দর্শকের সবসময়ই একটু বেশি আগ্রহ থাকে। যার কারণে ‘তুমি আছো তুমি নেই’ সিনেমাটি আমরা চালাতে শুরু করি। কিন্তু হতাশ হলাম।

যেমনটা আশা করেছিলাম তেমন দর্শক এখনো পাইনি। দুপুরের একটি শো চালিয়েছি যেখানে দর্শক ছিলো না তেমন। হয়তো ৩০/৪০ এর জনের মত হবে। এরপরের শো শুরু হয়েছে কিছুক্ষণ আগে। এই শোতে কিছু দর্শক আছে কিন্তু আশানুরূপ না। ৩০৬ আসনের হলে যদি এত কম দর্শক হয় তাহলে সিনেমা চালানোই কঠিন হয়ে পড়বে।

তিনি আরও বলেন, করোনার কারণে অনেক দিন হল বন্ধ ছিলো। এমনিতেই অনেক টাকা ক্ষতি হয়েছে। এখন যদি আবার সিনেমা হল বন্ধ করে দেই তাহলে তো দর্শকরা আতংকে পড়বে। ২/৩ জন দর্শক হলেও সেটা দিয়েই ছবি

চালিয়েছি এরমধ্যে। এখন এই সিনেমারও যদি এমন অবস্থা হয় তাহলে তাই-ই করতে হবে, কিছু করার তো নেই। একটা নতুন সিনেমা আগ্রহ নিয়ে চালালাম সেটা তো নামিয়েও ফেলতে পারিনা!

হতাশার সুরে হলের এই ব্যবস্থাপক বলেন, এমন অবস্থায় হল চালানোই যাচ্ছে না। হলের ব্যবস্থাপনা, কর্মচারী তাদেরকে টাকা-পয়সা দিতেই হিমসিম খেতে হচ্ছে। সিনেমা থেকে বিদ্যুৎ বিলের টাকা-ই উঠছে না। ক্ষতি হলেও হলের মালিক (এম এ হাফিজ) তার নিজস্ব অর্থায়ন থেকে কর্মচারী ও হলের সবকিছুর বিল পরিশোধ করছেন। সিনেমা থেকে টাকা উঠছেই না। এখন দেখা যাক কী হয়!

করোনার কারণে প্রায় ৮ মাস বন্ধ ছিলো দেশের সব সিনেমা হল। গেল বছরের অক্টোবর মাসে বেশ কিছু সিনেমা হল খুললেও খুলেনি শ্যামলী সিনেমা হল। এরপর ‘বিশ্বসুন্দরী’ সিনেমা দিয়ে দীর্ঘ সময় পর খুলেছিলো হলটি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By Raytahost
error: এই সাইটের নিউজ কপি করা বেআইনী !!