Logo
শিরোনাম:
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ গাজীপুর সদর মেট্রো থানা শাখা এর ত্রি বার্ষিক সম্মেলন ২০২২। বিক্রয় অযোগ্য সরকারি ৫০ বস্তা চাউল উদ্ধার। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কন্যা বেঁচে আাছেন যতদিন মাননীয় প্রধান মন্ত্রী হিসাবে চাই ততদিন। গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ খান ও সাদারণ সম্পাদক আতাউল্লা মন্ডল। গাজীপুর মহানগর যুবলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী মোঃহিরা সরকার। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ গাজীপুর মহানগর। বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৫০ তম। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন ৩২ নং ওয়ার্ডে ন্যায্য মুল্যে চাউল আটা দেওয়া হচ্ছে। ময়মনসিংহে সড়কে প্রাণ গেল নারী-শিশুর এমবিবিএস পাস না করেই ডাক্তারি করছিলেন তিনি।

#একটি_মানবিক_সাহায্যের_আবেদন

 

সবাই সাধ্যমতো এগিয়ে আসুন। আপনারা ওপারলে কম বেশি দিয়ে বাচ্চাটার পাশে দাড়ান।।

এই ফুটফুটে বাচ্চাটির নাম মোঃ আবুল কালাম আজাদ..

বয়স/৭ বছর,
পিতা- মোঃ আলমগীর আকন,
মাতা- ফাতিমা বেগম,
গ্রাম- মধ্য তুষখালী,
থানা- মঠবাড়িয়া, জেলা- পিরোজপুর।

যে বয়সে স্কুলে যাবার কথা, দৌড়ঝাপ, খেলাধুলা করার কথা সে বয়সে তার চোখ একটি দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত। ধীরে ধীরে চোখের রেটিনা খারাপ হয়ে যাচ্ছে। ভালোকরে চোখে দেখতে পায় না। তার চিকিৎসা দেশে সম্ভব না, ভারতে চিকিৎসার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসক। তার বাবা একজন মিশুক চালক। তার পক্ষে চিকিৎসার খরচ বহন করা কষ্টকর হয়ে দাঁড়িয়েছে।
তার চিকিৎসার জন্য ১০ লক্ষ টাকা প্রয়োজন।। তার বাবার পক্ষে এত টাকা জোগাড় করা সম্ভব না।।তাই বিত্তবান দের কাছে হাত পেতেছেন।।

৫০/১০০/৫০০ যে যা পারেন তাই দিয়ে সাহায্য করুন।।

বাচ্চাটি চিকিৎসার জন্য দেশ-বিদেশের রেমিন্টেন্স যোদ্ধা, জন প্রতিনিধি, হৃদয়বান মানুষ, মানবিক সংগঠন ও দেশের সকল নীতিনির্ধারকদের কাছে সাহায্যের আবেদন করেছেন।

যারা সহায়তা করতে চান তারা বাচ্চাটির বাবা আলমগীর আকনের মোবাইল বিকাশ নাম্বারে পাঠাতে পারেন।
টাকার অভাবে তার চিকিৎসা শুরু সম্ভব হচ্ছে না।।তাই সবাই যতটুকু পারেন এগিয়ে আসুন।। তার চিকিৎসার জন্য ইভেন্ট খোলা হবে খুব শীঘ্রই ।। আর তার বাবার ব্যাংক একাউন্ট ও খোলা হবে যেন ব্যাংক এও টাকা অনুদান দিতে পারেন আপনারা।।।
আপাতত তার বাবার নাম্বার এ বিকাশ খোলা হয়েছে,,,,যেন আপনারা বিকাশ এ সাহায্য পাঠাতে পারেন।।

ছেলেটির বাবার বিকাশ নাম্বার ঃ
01923-878211 (personal)

একদিন আজেবাজে খরচ না করে সেই টাকা যদি একজন মানুষের জীবন বাচাতে আমরা দান করি,,কেয়ামত এর দিন এই দান আমাদের নাজাতের উছিলা হতে পারে।।আসুন সবাই এগিয়ে আসি।।

প্লিজ যাদের সামর্থ্য আছে কেউ এড়িয়ে যাবেন না।।সন্তান // ছোট ভাই মনে করে বাচ্চাটার পাশে দাড়ান।।

৫০ /১০০ করে টাকা দিলে আমরা কেউ মরে যাবোনা,,কিন্তু আমাদের এই সামান্য অনুদান এ এই বাচ্চাটি চোখের আলো ফিরে পাবে৷। চোখ যার নাই সেই বুঝে চোখ না থাকার বেদনা।।।তাই আসুন ১০০ টাকা করে হলেও সবাই দান করি।।

#যাকাত হিসেবে দিতে পারেন,,,সওয়াব এর নিয়তে দিতে পারবেন।।।কাফফারার টাকা হিসেবে ও দিতে পারবেন।।কোনো মানত করে থাকলেও সেই টাকা দিতে পারবেন।।।

আসুন রমজান মাসে আমরা ভাল একটি কাজে এগিয়ে আসি।।রমজান এ আমরা যত ভাল কাজ করি অন্য সময়ের তুলনায় সওয়াব বেশি হয়।।।তাই এগিয়ে আসুন।।
যাকাত বা দান টা সঠিক জায়গায় করুন।।একজন মানুষের চোখের আলো ফিরিয়ে দেয়ার চেয়ে ভাল কাজ হয়ত আর নেই।।।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By Raytahost
error: এই সাইটের নিউজ কপি করা বেআইনী !!