Logo
শিরোনাম:
গাজীপুরে শুরু হলো ভূমি সেবা সপ্তাহ। গাজীপুর তাকওয়া পরিবহনের একটি মিনিবাসে আগুন দিয়েছে উত্তেজিত জনতা।  গাজীপুরে বিশ্ব দুগ্ধ দিবস পালিত হয়েছে। গাজীপুরে রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তায় ধূমপান মুক্ত বাংলাদেশ চাই সোসাইটির উদ্যোগে রেলি ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবেশী ভাড়াটিয়ার ছুরিকাঘাতে এক অন্তঃসত্ত্বা স্কুল শিক্ষিকার মৃত্যু হয়েছে। গাজীপুরে তুরাগ কমিউটার ট্রেনের একটিবগি লাইচ্যুত,উদ্ধার কাজ চলছে। ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুতে বিশ্বজুড়ে শোকের ছায়া। ময়মনসিংহ রোড রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তা অ্যাক্সিডেন্টে দুই জনের মৃত্যু। গাজীপুরের কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগারের এক মহিলা হাজতি মৃত্যু। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন ২২ নং ওয়ার্ডের গজারিয়া পাড়ায় রাস্তায় মাজে বেড়া।

মোবাইলের আইএমইআই পরিবর্তন করত অ্যাপসের মাধ্যমে তারা।

চোরাই মোবাইল কারবারি চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে মিরপুর পুলিশ বিভাগ। চক্রটি রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ছিনতাই ও চুরি হওয়া মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে আইএমইআই নম্বর পরিবর্তন করে পুনরায় বিক্রি করে আসছিল।

সোমবার ৬ ফেব্রুয়ারি পল্লবী এলাকা থেকে মো. রাসেল (৩১) নামে এই চক্রের এক সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে একইদিন কাফরুল থানা এলাকা থেকে মো. কবির  ২৫ ও মো. সিয়াম নামে চক্রের আরও দুই সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তখন তাদের কাছ থেকে মোট ১১০টি বিভিন্ন ব্র্যান্ডের চোরাই মোবাইল ফোন, একটি ল্যাপটপ, একটি কম্পিউটারের সিপিইউ ও দুটি এসএসডি ড্রাইভ জব্দ করা হয়।

মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি ) দুপুরে রাজধানীর মিরপুর ডিসি অফিসে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান উপ-পুলিশ কমিশনার (মিরপুর বিভাগ) মো. জসীম উদ্দীন মোল্লা।

তখন আরো বলেন, বিশ্বস্ত সূত্রে আমরা জানতে পারি—রাসেলসহ কয়েকজন ব্যক্তি ছিনতাই বা চোরাইকৃত মোবাইলের আইএমইআই নম্বর পরিবর্তন করে পুনরায় বাজারজাত করে থাকে। রাসেলকে ছয়টি মোবাইল ও একটি ল্যাপটপসহ গ্রেপ্তার করি। ল্যাপটপ ও মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে চোরাই মোবাইলের আইএমইআই নম্বর পরিবর্তন করত রাসেল।

তিনি আরও বলেন, রাসেলকে জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে কবির ও সিয়ামের নাম জানতে পারি। শাহ আলী প্লাজার ৫ম তালার ভূঁইয়া টেলিকম দোকানে এই চক্রটি মোবাইলের আইএমইআই নম্বর পরিবর্তনের কাজ করত। ওই মার্কেটে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের কাছ থেকে ১০৪টি চোরাই মোবাইল ও হার্ডডিক্স জব্দ করা হয়।

মো. জসীম উদ্দীন মোল্লা বলেন, রাসেল গত দেড় বছর যাবত এই কাজের সঙ্গে যুক্ত। রাসেলের চক্রের কাজ হলো চুরি-ছিনতাই করা মোবাইলের আইএমইআই নম্বর পরিবর্তন। চোরাই মোবাইল চক্রের একটি অংশ ছিনতাই করা মোবাইল কম দামে কিনত। পরবর্তীতে আইএমইআই নম্বর পরিবর্তনের পরে বিভিন্ন দোকানে মোবাইলগুলো বিক্রির জন্য ডিসপ্লে করা হতো।

এক প্রশ্নের জবাবে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, চুরি হওয়া বা হারিয়ে যাওয়া মোবাইলের জিডি বা মামলার যাচাই-বাছাই করে সেগুলো আসল মালিককে ফেরত দেওয়া হবে। চুরি-ছিনতাই কমানোর জন্য সবসময় আমাদের মোবাইল পেট্রলিং টিম কাজ করে যাচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By Raytahost
error: এই সাইটের নিউজ কপি করা বেআইনী !!