Logo
শিরোনাম:
হাসপাতালের ভিডিও ধারণ করা বা হাসপাতালে সাংবাদিকদের প্রবেশের জন্য নিতে হবে মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন। বাংলাদেশে আবারও শুরু হয়েছে চতুর্থতম অর্থনৈতিক শুমারি। গাজীপুরে অবৈধভাবে গ্যাস ব্যবহারের দায়ে ৮ জনকে ৩ লাখ ১০ হাজার টাকা। গাজীপুরে সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন। ঘরমুখো মানুষকে সেবা দেওয়ার জন্য পুলিশের প্রতিটি সদস্য সব সময় প্রস্তুত রয়েছে। গাজীপুর ক্যান্টনমেন্টে গরুর হাটে ক্রেতা- বিক্রেতা শূন্য। গাজীপুরে শুরু হলো ভূমি সেবা সপ্তাহ। গাজীপুর তাকওয়া পরিবহনের একটি মিনিবাসে আগুন দিয়েছে উত্তেজিত জনতা।  গাজীপুরে বিশ্ব দুগ্ধ দিবস পালিত হয়েছে। গাজীপুরে রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তায় ধূমপান মুক্ত বাংলাদেশ চাই সোসাইটির উদ্যোগে রেলি ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও পরিবারের সকল শহীদদের প্রতি দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

আজ ১৫ আগস্ট, বাঙালির শোকের দিন। ১৯৭৫ সালের এই দিনে জাতি হারিয়েছে ইতিহাসের মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। ৪৮ বছর আগে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবার নৃশংসভাবে হত্যা করে পৃথিবীর‌ ইতিহাসে জঘন্যতম ও কলঙ্কময় অধ্যায়ের জন্ম দিয়েছিল ঘাতকেরা।

বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ডিপ্লোমা প্রকৌশলী সমিতি, ঘোড়াশাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র শাখা এবং ইনস্টিটিউশন অফ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ, ঘোড়াশাল সাংগঠনিক জেলা শাখার উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ডিপ্রকৌস ঘোড়াশাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র শাখার সম্মানিত সভাপতি জনাব ইফতেখার হোসেন, উপস্থিত ছিলেন জনাব আজহারুর রহিম সভাপতি, আইডিইবি, ঘোড়াশাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র শাখা, উপস্থিত ছিলেন জনাব আরিফ উর রহমান,সহ-সভাপতি, ঘোড়াশাল ডিপ্রকৌস, উপস্থিত ছিলেন জনাব মোঃ বেলাল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক, ঘোড়াশাল ডিপ্রকৌস, উপস্থিত ছিলেন জনাব রানা কান্ত দাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক আইডিইবি, ঘোড়াশাল সাংগঠনিক জেলা শাখা, জনাব মোঃ ইমরান হোসেন,সাধারণ সম্পাদক, আইডিইবি,ঘোড়াশাল সাংগঠনিক জেলা শাখা এর সঞ্চালনায় কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন অত্র শাখার সদস্য প্রকৌশলী জনাব মোঃ আরিফ হোসেন ,স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইডিইবি ঘোড়াশাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র শাখার সাধারণ সম্পাদক,আবু জোবায়ের। এ সময় তিনি হাজার বছরের কাঙ্খিত মহামানব সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ পরিবারের সকল শহীদদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। তার বক্তব্য বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা এবং জাতীয় ৪ নেতাকে হত্যার মধ্য দিয়েই তারা ক্ষান্ত হন নাই রাষ্ট্রীয় উদ্যোগে খুনিদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা করে দেন তারা। স্বঘোষিত রাষ্ট্রপতি খন্দকার মোস্তাক এর নেতৃত্বে ১৯৭৫ সালের ২৬শে সেপ্টেম্বর সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে জারি করা হয় ইনডেমনিটি বা দায় মুক্তি অধ্যাদেশ। অর্থাৎ বঙ্গবন্ধু এবং তার পরিবারকে যারা হত্যা করেছে তাদের কোন প্রকার বিচার করা যাবে না। উক্ত অধ্যাদেশে বলা হয়েছে ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট বলবৎ আইনের পরিপন্থী যাহাই ঘটুক না কেন এ ব্যাপারে সুপ্রিমকোর্ট সহ কোন আদালত মামলা কোন প্রকার অভিযোগ দায়ের করা সহ আইনি কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাবে না। আমরা একই সূত্রে দেখতে পাই ১৯৭৯ সালের ৯ই জুলাই তৎকালীন সামরিক শাসক মেজর জিয়াউর রহমান এই ইনডেমনিটি অধ্যাদেশকে আইনে রূপান্তর করেন। এই আইনের মাধ্যমে ১৯৭৫ সালে ১৫ আগস্ট থেকে ১৯৭৯ সালের ৯ এপ্রিল পর্যন্ত সব অবৈধ হত্যা গুম রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখলে প্রবৃত্তিকে বৈধতা দেয়া হয়েছে।এটা শুধু বাংলাদেশ নয় পৃথিবীর কোথাও এই ধরনের আইনের কোন নজির এখন পর্যন্ত হয় নাই এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ঘোড়াশাল ডিপ্রকৌস এর সাহিত্য ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক মোঃ মেকলিন আজাদ, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন,নির্বাহী সদস্য মোঃ সোহেল খান,নির্বাহী সদস্য মোঃ আরিফ হোসেন , লিংকন মন্ডল সাহিত্য ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আইডিইবি, ঘোড়াশাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র শাখা, কাউন্সিলর মোঃ নুরজামাল হোসেন, সহ অত্র শাখার সদস্য প্রকৌশলী,মোঃ শাকিল হোসেন, মোঃ আব্দুল কাইয়ুম, মোঃ জাকির হোসেন, মোঃ জহিরুল ইসলাম, মোঃ আরিফ হোসেন, মোঃ শেখ শাদী সহ সকল সদস্য প্রকৌশলী বৃন্দ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Theme Created By Raytahost
error: এই সাইটের নিউজ কপি করা বেআইনী !!